জাতীয়

খুঁটিতে বেঁধে নারী নির্যাতন, আটক ২

খুঁটিতে বেঁধে নারী নির্যাতন, আটক ২

চায়ের দোকানের চুলা ভাঙচুরের অভিযোগ এনে এক নারীকে শাড়ি দিয়ে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। এ ঘটনায় দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ শুক্রবার সকালে সাতক্ষীরার তালা উপজেলার কৈখালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের শিকার ওই নারীর নাম বাজারি মণ্ডল (৫০)। তাঁকে পাটকেলঘাটার একটি ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, তিন ঘণ্টা বেঁধে রেখে নির্যাতন চালানোর পর পাটকেলঘাটা থানার পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করে।

পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহিবুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ঘটনাস্থল কৈখালী গ্রামের কিশোর মণ্ডল ও ইউপি সদস্য তপন কুমার বাছাড় জানান, বাজারি মণ্ডলের স্বামী নিরঞ্জন মণ্ডলের বসতবাড়ির লাগোয়া সামান্য খাসজমি আছে। সেখানে একই পাড়ার নিত্যানন্দ সরকার চায়ের দোকান করেছেন। এ জন্য প্রতি মাসে ২০০ টাকা ভাড়াও দেন তিনি। তাঁরা জানান, কয়েক মাস ধরে নিত্যানন্দ এ ভাড়া দেওয়া বন্ধ করে আদালতে মামলা করেন। এ নিয়ে বাজারি মণ্ডল ও নিত্যানন্দের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। গতকাল বৃহস্পতিবার নিত্যানন্দের লোকজন বাজারি মণ্ডলকে চড়-থাপড় মেরে আহত  করেন। আজ সকালে দোকানে এসে নিত্যানন্দ দেখেন তাঁর চায়ের চুলা ভাঙচুর করা হয়েছে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, আজ সকালে নিত্যানন্দকে ঘর ছাড়তে বলেন বাজারি মণ্ডল। এরপর নিত্যানন্দ তাঁর ভাই বিশু সরকার, পুলক সরকার, মহানন্দ সরকার ও তাঁদের স্ত্রী তিলকা সরকার, মিনতি সরকার ও শৈব্বা সরকার বাজারি মণ্ডলকে লাঠিসোটা দিয়ে মারধর করে দোকানের একটি খুঁটিতে বেঁধে রাখেন। এ সময় তাঁদের অভিযোগ, বাজারি মণ্ডল চায়ের দোকানের ইটের চুলা ভাঙচুর করেছেন।

বাজারির স্বামী নিরঞ্জন মণ্ডল বলেন,  চুলা ভাঙার  অভিযোগ সত্য নয়।

ইউপি সদস্য তপন কুমার আরো জানান, বাজারির বাড়ির সদস্যরা এসে তাঁকে রক্ষা করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। এ সময় তাঁরা বিষয়টি জানান পাটকেলঘাটা থানার ওসিকে।  তিনি উপপরিদর্শক (এসআই) আসলামকে দ্রুত ঘটনাস্থলে পাঠান। তিনি এসে বাজারির শরীরের বাঁধন খুলে দেন।

ইউটিউবে আমাদের রান্নার সব ভিডিও দেখতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুণ

To Top
[X]